আজ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জুন, ২০২২ ইং

মৌলভীবাজারে করোনা সন্দেহজনক প্রবাসী নারীর মৃত্যু

  • চিকিৎসক-নার্স ও স্বজন-প্রতিবেশী কোয়ারেন্টিনে

সংবাদদাতা, মৌলভীবাজার :: মৌলভীবাজার শহরের কাশীনাথ সড়কে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে অসুস্থ হয়ে যুক্তরাজ্য প্রবাসী এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। রবিবার (২২ মার্চ) দুপুরে তার মৃত্যু হয়। ঘটনার পর প্রবাসী নারী ও আশপাশের কয়েকটি বাড়ির বাসিন্দা এবং সাত জন চিকিৎসক-নার্সকে হোম কোয়ারেন্টিনে রেখেছে প্রশাসন। এছাড়া ওই এলাকায় পুলিশ সদস্যরা অবস্থান নিয়ে চলাচল এবং ঘর থেকে বের হওয়া নিয়ন্ত্রণ করছেন।

মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমদ পিপিএম (বার) জানান, গত ১১ জানুয়ারি ওই নারী দেশে ফেরেন। তার মৃত্যুর আসল কারণ সম্পর্কে শিগগিরই জানা যাবে। আপাতত আমরা ওই এলাকা ঘিরে রেখেছি এবং চলাচল নিয়ন্ত্রণ করছি।
তবে মৌলভীবাজার পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর স্বাগত কিশোর দাশ চৌধুরীর দাবি, ‘ওই নারী ২০-২৫ দিন আগে যুক্তরাজ্য থেকে দেশে আসেন। রবিবার রাতে তিনি বাসায় মারা যান। হাসপাতালে নেওয়ার পর তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। তিনি কাশি ও সর্দি-জ্বরে ভুগছিলেন।’

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ওই নারী হৃদরোগ, ডায়াবেটিক, উচ্চ রক্তচাপসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। রবিবার দুপুর দেড়টার দিকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ অবস্থায় স্বজনরা তাকে হাসপাতাল থেকে বের করে শহরের লাইফ-লাইন একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে যান। সেখানেও চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে ওই নারীর স্বজনরা তাকে কাশীনাথ রোডের বাসায় নিয়ে প্রচলিত নিয়মে গোসলসহ অন্যান্য কাজ সম্পন্ন করেন। পরে মরদেহ রাতে ফ্রিজিং গাড়িতে রাখা হয়। সোমবার (২৩ মার্চ) দুপুরে সদর উপজেলার ভাদগাঁও গ্রামে ওই নারীর স্বামীর বাড়িতে তাকে নেওয়া হয়। সেখানে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে একই এলাকার গিয়াসনগর ইউনিয়নে বিকাল ৩টায় জানাজা শেষে মাদ্রাসার পাশে তাকে দাফন করা হয়।

এদিকে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. রোকসানা ওয়াহিদ রাহি জানান, স্বাস্থ্যবিভাগের কর্মকর্তারা মৃত নারীর বাসায় গিয়ে আলামত সংগ্রহ করেছেন। বিষয়টি সম্পর্কে বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন তৌহিদ আহমদ বলেন, বিষয়টি পরে ব্রিফিং করে জানানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap