আজ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২২ ইং

সিলেটে বাড়ছে করোনা রোগী, বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা

সিলহট রিপোর্টার :: সিলেট বিভাগে একজন-দু’জন করে বাড়ছে প্রাণঘাতি করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। আর সন্দেহজনক রোগী বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। এতে সিলেটবাসীর মধ্যে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা চরম আকার ধারণ করছে।

শনিবার (১১ এপ্রিল) হবিগঞ্জে নতুন করে একজন করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ার পর সিলেট অঞ্চলে এই নিয়ে ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক। এর আগে মৌলভীবাজারেও করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান একজন মুদি দোকানি। মৃত্যুর পর ওই রোগীর রিপোর্ট আসে পজেটিভ।

এদিকে, রবিবার (১২ এপ্রিল) সুনামগঞ্জেও এক নারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নারীর বাড়ি জেলার দোয়ারা বাজার উপজেলায়। রবিবার সকালে ঐ নারীর করোনা পজেটিভ রিপোর্ট স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে আসে। আজ বিকেলে সুনামগঞ্জ জেলা লকডাউন ঘোষণা করার সম্ভাবনা আছে।

এর আগে ৫ এপ্রিল সিলেট নগরীতে করোনায় আক্রান্ত হন একজন চিকিৎসক। তিনি ওসমানী মেডিকেলের সহকারী অধ্যাপক এবং নগরীর হাউজিং এস্ট্রেট এলাকার বাসিন্দা। বর্তমানে ওই চিকিৎসক রাজধানীর কুর্মিটুলায় চিকিৎসাধীন আছেন এবং তাঁর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত বলে জানিয়েছেন পরিবার ঘনিষ্ট একটি সুত্র।
সবমিলিয়ে সিলেট বিভাগে করোনা রোগী শনাক্ত হলেন চারজন। এর মধ্যে একজন মারা গেলেও অপর তিনজন রয়েছেন চিকিৎসাধীন।

জানা গেছে, রবিবার পর্যন্ত শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে করোনা সন্দেহে ১২ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। এদের মধ্যে ৮জন পুরুষ ও ৩ জন নারী। তবে অপর একজন পুরুষ না নারী এই তথ্য নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এই ১২ জনের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা কিছুটা আশঙ্কাজনক রয়েছে। শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. সুশান্ত কুমার মহাপাত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শনিবার পর্যন্ত হাসপাতালে করোনা সন্দেহে রোগী ছিলেন ১১ জন। আজ রবিবার আরেকজনকে করোনা সন্দেহে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের সবার শরীরে জ্বর, সর্দি ও কাশি রয়েছে।

সিলেট শামসুদ্দিন হাসপাতালে এক সাথে করোনা সন্দেহের এত রোগী পূর্বে ভর্তি ছিলেন না। ১২ জন ভর্তি থাকায় সিলেটের মানুষের মাঝে বাড়ছে আতঙ্ক। তাদের সবার নমুনা পরীক্ষা করে ওসমানী মেডিকেল কলেজের করোনা পরীক্ষার ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। ফলাফল আসলে নিশ্চিত হওয়া যাবে তাদের কারো শরীরে করোনাভাইরাস আছে কি-না। সূত্র জানিয়েছে, হাসপাতালে ভর্তি ১২ জনের মধ্যে বেশীরভাগই সিলেট সদর উপজেলার বাসিন্দা।

অপরদিকে, সিলেটের সুনামগঞ্জ অঞ্চলের অধিকাংশ লোক কাজ করছেন নারায়নগঞ্জে। শুধু সুনামগঞ্জ নয়, সিলেটের বিভিন্ন উপজেলার লোকজনও পোশাক শ্রমিক হিসেবে কাজ করছের নারায়নগঞ্জে। পোশাক শ্রমিকের পেশায় নিয়োজিত এইসব শ্রমিকরা এখন বাড়ি ফিরছে নির্বিঘ্নে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোরতা থাকার পরও গণপরিবহনের মাধ্যমে বাড়ি ফিরছেন শ্রমিকরা। সুনামগঞ্জ অঞ্চল থেকে আমাদের প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন ইতোমধ্যে জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে শতাধিক পোশাক শ্রমিক প্রবেশ করেছেন নারায়নগঞ্জ থেকে। খবর পেয়ে প্রশাসন ওইসব শ্রমিকের বাড়িতে লাল নিশান টাঙ্গিয়ে দিলেও এখনও আগমন বন্ধ করা যায়নি। ফলে সুনামগঞ্জে আতঙ্ক ক্রমেই বেড়ে চলেছে।

এদিকে, ৫ এপ্রিল সিলেটে আক্রান্ত হওয়া চিকিৎসক কার মাধ্যমে আক্রান্ত হতে পারেন-এমন বিষয়টিও ঘোরপাক খাচ্ছে। এরই মধ্যে চিকিৎসকের সংস্পর্শে আশা ১৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে । তবে, তাদের কারো মধ্যে করোনার লক্ষণ পাওয়া যায়নি।

তাছাড়া, নারায়নগঞ্জ থেকে সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে প্রবেশ করা পোশাক কর্মীদের নিয়ে নতুন করে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। সব মিলিয়ে শুধু সিলেট জেলা নয়, পুরো বিভাগ এখন নতুন করে করোনা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap