আজ ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯শে মে, ২০২২ ইং

প্রেসক্রিপশনের দুর্বোধ্যতা দূর করতে পদক্ষেপ নিন

চিকিৎসা একটি মহান পেশা। সেজন্য চিকিৎসকদের দায়িত্বশীলতার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। অনেক ক্ষেত্রে একজন চিকিৎসকের সামান্য অবহেলা, অসচেতনতা কিংবা দায়িত্বহীনতা ডেকে আনতে পারে মারাত্মক পরিণতি। তাই চিকিৎসাসেবার প্রতিটি স্তরে অত্যন্ত সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। কিন্তু দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে চিকিৎসকরা যে ব্যবস্থাপত্র (প্রেসক্রিপশন) লেখে থাকেন তা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই থাকে দুর্বোধ্য। এ কারণে ওষুধের নাম ঠিকমত পড়তে না পারায় ভুল ওষুধ দেন দোকানদাররা। এতে রোগ সারার বদলে স্বাস্থ্যঝুঁকি আরও বেড়ে যায়। এই বাস্তবতায়ই চিকিৎসকদের ব্যবস্থাপত্র (প্রেসক্রিপশন) পড়ার উপযোগী ও স্পষ্ট এবং বড় অক্ষরে কম্পিউটার মুদ্রণের মাধ্যমে লেখার নির্দেশনা দিয়েছেন হাইকোর্ট। এটি আশার কথা।

 

এছাড়া চিকিৎসকরা প্রেসক্রিপশনে ওষুধের জেনেরিক নাম (ওষুধের মূল কেমিক্যাল কম্পোজিশনের নাম) না লিখে ব্র্যান্ডের নাম লিখে থাকেন। এতে পছন্দ অনুযায়ী কোম্পানির ওষুধের নাম লেখার সুযোগ থাকে। অভিযোগ আছে, ওষুধের মান যাই হোক কমিশন বাণিজ্যের অনৈতিক লোভে অনেক চিকিৎসক তাদের পছন্দ অনুযায়ী কোম্পানির ওষুধের নাম লেখেন ব্যবস্থাপত্রে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হন রোগীরা। উচ্চদাম দিয়েও নিন্মমানের ওষুধ কিনতে বাধ্য হন মানুষজন। চিকিৎসকদের এ ধরনের অনৈতিক প্রবণতা বন্ধে প্রেসক্রিপশনে ওষুধের জেনেরিক নাম লেখা বাধ্যতামূলক করা উচিত। তাতে পছন্দের কোম্পানির ওষুধের নাম লেখার আর সুযোগ থাকবে না। এজন্য প্রয়োজনে আইন করতে হবে। এবং তা দ্রুত।

 

দেশে চিকিৎসা ব্যবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। কিন্তু গোড়ায় গলদ রেখে কাঙ্খিত সাফল্য পাওয়া যাবে না। সেজন্য আদালতের এ সংক্রান্ত নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। অতীতে জনস্বার্থে অনেক নির্দেশনা এলেও সেগুলো বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আন্তরিকতার পরিচয় দিয়েছে এমনটি জোর দিয়ে বলা যাবে না।

 

দেশে চিকিৎসা ব্যবস্থার অনেক উন্নতি হয়েছে। কিন্তু গোড়ায় গলদ রেখে কাঙ্খিত সাফল্য পাওয়া যাবে না। সেজন্য আদালতের এ সংক্রান্ত নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। অতীতে জনস্বার্থে অনেক নির্দেশনা এলেও সেগুলো বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আন্তরিকতার পরিচয় দিয়েছে এমনটি জোর দিয়ে বলা যাবে না। তাই জনস্বাস্থ্যের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার কোনো বিকল্প নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap