আজ ১০ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জুন, ২০২২ ইং

শাবিতে মঙ্গলবার থেকে করোনা টেস্ট শুরু

সংবাদদাতা, শাবি :: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) টেস্টের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাগারে স্থাপিত ল্যাব উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ মে) থেকে এ ল্যাবে করোনাভাইরাস এর নমুনা পরীক্ষা করা হবে।
সোমবার (১৮ মে) বেলা ৩টায় ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এই ল্যাব উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, সিলেট জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা: প্রেমানন্দ মন্ডল, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রধানগণ।

করোনা পরীক্ষা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মো. শামসুল হক প্রধান বলেন, প্রথম এক-দুই দিন আমরা ৯৪ টি করে নমুনা টেস্ট করবো। কয়েকদিন পর থেকে দ্বিগুণ করে টেস্ট করা হবে। তিনি বলেন, পরীক্ষা শুরুর লক্ষ্যে ইতোমধ্যে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণও প্রদান করা হয়েছে। করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষায় যেতে সর্বপ্রথম সেফটি ও সিকিউরিটি লেভেল নিশ্চিত করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী মিলে মোট ২১ জনের একটি টিম এখানে কাজ করবে।

তিনি আরও বলেন, ল্যাব করনোভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে স্থাপনকৃত পিসিআর মেশিনের মতো সিঙ্গেল সাইকেলে প্রতিদিন ৯৪টি নমুনা সনাক্ত করা যাবে। যা কমপক্ষে ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট ও সর্বোচ্চ ২ ঘণ্টার মতো সময় লাগতে পারে। একইভাবে ডাবল সাইকেলে প্রায় ১৮৮টি নমুনা সনাক্ত করা সম্ভব হবে।

উল্লেখ্য, গত ৯ এপ্রিল শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যানিমেল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়কে করোনা শনাক্ত করার জন্য পিসিআর ল্যাব চালুর অনুমোদন দেওয়া হয়। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া বাকি তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিমধ্যে করোনার নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

দেশে করোনা সংক্রমণ দেখা দেওয়ার পর গত ৭ এপ্রিল থেকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। সিলেট বিভাগের মধ্যে এই এইটি ল্যাবেই করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত ওসমানীর ল্যাবে একদিনে সর্বোচ্চ ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

সিলেট বিভাগের চার জেলা মিলে প্রতিদিন গড়ে ৪০০ থেকে সাড়ে চারশ’ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ওসমানীর ল্যাবে পাঠানো হয়। আর গড়ে পরীক্ষা হয় দেড়শটি। ফলে ওসমানীর ল্যাবে জমা পড়ে থাকে অনকে নমুনা। কয়েকদিনের নমুনা জমে যাওয়ায় রিপোর্ট দিতে সংকট সৃষ্টি হয়। এ অবস্থায় ওসমানীর ল্যাবে জমা হওয়া নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। এতে পরীক্ষার ফলাফল পেতে সপ্তাহখানেক লেগে যায়।

তবে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাব চালু হলে সিলেটে করোনা শনাক্তকরণের সংকট অনেকখানি কেটে যাবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাব পরিচালনা করবে জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগ (জিইবি) ও বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগ (বিএমবি)। বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ই’ ভবনে জিইবি বিভাগে এ ল্যাব চালু হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap