আজ ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

বিভাগে করোনা কেড়ে নিচ্ছে একের পর এক প্রাণ, সিলেট জেলায় প্রাণহানী বেশি

সিলহট রিপোর্টার :: সিলেটে যেমন হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা, তেমনি বাড়ছে লাশের সারিও। গত ১০ দিনে বিভাগে প্রাণঘাতি করোনায় গড়ে একজন করে মারা গেছেন । গত ১৬ তারিখে সিলেটে মৃতের সংখ্যা ছিলো ৬, আর ২৬ তারিখে সে সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫-তে। এর মধ্যে গত ২০ মে একদিনেই মারা গেলেন সিলেটের ৩ জন।

তবে করোনায় বিভাগে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে সিলেট জেলার বাসিন্দাই বেশি। এ জেলার মারা গেছেন মোট ১১ জন, মৌলভীবাজারের ৩ ও হবিগঞ্জের একজন।

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৭। সিলেট ওসমানী হাসপাতালের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় গতকাল নতুন করে ১৭ জনের শরীরে এ ভাইরাসটির অস্তিত্ব ধরা পড়ে। এই ১৭জনকে নিয়ে সিলেটে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৭১৪।

বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) কার্যালয় সিলেট-এর দৈনিক প্রতিবেদন অনুযায়ী- গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিলো ৬৯৭। ২৪ ঘণ্টার নতুন ১৭ জনকে নিয়ে আজ বুধবার (২৭ মে) সকাল ৮টা পর্যন্ত বিভাগে আক্রান্তের সংখ্যা ৭১৪। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ৩৪৬, সুনামগঞ্জে ১০৭, হবিগঞ্জে ১৬৪ ও মৌলভীবাজার জেলায় ৯৭জন। গতকাল শুধু সিলেট জেলায়ই আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে, অন্য ৩ জেলা ছিলো করোনামুক্ত।

অপরদিকে, আজ পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২০৪ জন। তার মধ্যে সিলেটে ৬৭, সুনামগঞ্জে ৫১, হবিগঞ্জে ৮৪ ও মৌলভীবাজারে ২জন।

সিলেট বিভাগে করোনামুক্ত হয়ে আজ সকাল পর্যন্ত হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ১৯১ জন। এর মধ্যে সিলেটে ৪১, সুনামগঞ্জে ৫৯, হবিগঞ্জে ৭৫ ও মৌলভীবাজারে ১৬ জন।

বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) কার্যালয় সিলেট-এর প্রতিবেদন সূত্রে আরও জানা গেছে, গত ১০/৩/২০২০ ইংরেজি তারিখ হতে আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত সিলেট বিভাগে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে ১২০৭৬ জনকে এবং কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ১০৬৯৭ জনকে।

বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টিনে অবস্থান করছেন ১৩৭৯ জন। এর মধ্যে সিলেটে ৩৮১, সুনামগঞ্জে ৪৩২, হবিগঞ্জে ২২৩ ও মৌলভীবাজারে ৩৪৩ জন।
এ পর্যন্ত হাসপাতালে কোয়ারেন্টিনরত আছেন বিভাগের ২৩৮ জন। এর মধ্যে সিলেটে ৭৭, সুনামগঞ্জে ২৯, হবিগঞ্জে ১১৯ ও মৌলভীবাজারে ১৩ জন। তারা সংশ্লিষ্ট জেলা ও উপজেলা হাসপাতাল এবং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে চিকিৎসাধীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap