আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

সিলেটে ব্যাংকগুলোতে অভিনব কায়দায় গ্রাহকদের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতারকচক্র

ডেস্ক রিপোর্টার :: সিলেটে বিভিন্ন ব্যাংকের শাখায় অভিনব উপায়ে ফাঁদ পেতে একটি প্রতারকচক্র হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। ব্যাংকগুলোতে গ্রাহকদের ভিড়ের সুবিধা নিয়ে সহজ-সরল গ্রাহকদের টার্গেট করে চক্রটি পেতেছে প্রতারণার ভয়ঙ্কর এ নতুন কৌশল। আর এতে পা দিয়ে গ্রাহকরা হারাচ্ছেন লাখ লাখ টাকা।

জানা গেছে, সম্প্রতি সিলেটে বিভিন্ন ব্যাংকের শাখায় টাকা জমা দিতে আসা গ্রাহকের কাছ থেকে গ্রাহকদের ভিড়ের সুযোগ নিয়ে কৌশলে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রতারকচক্রের সদস্যরা। তারা টাকা জমা দিতে আসা গ্রাহকের কাছে এসে খুব দক্ষ ও ভদ্রভাবে টাকা জমা দেয়ার বিষয়ে জিজ্ঞেস করে এবং সাহায্য করতে আগ্রহী হয়। সহজ-সরল গ্রাহক তখন সুদর্শন ও স্যুট-টাই পরা ব্যক্তি এবং তার কথার ভঙ্গি দেখে সহজেই বিশ্বাস করে তাদের কাছে জমার দেয়ার টাকা ও রশিদ দিয়ে দেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই ব্যাংক থেকে প্রতারকচক্রের ওই সদস্য টাকাসহ উধাও হয়ে যায়। বিষয়টি যখন গ্রাহক বুঝতে পারেন তখর আর কিছুই করার থাকে না।

বিভিন্ন ব্যাংক শাখার গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গেছে, চলতি মাসের বিভিন্ন তারিখে জিন্দাবাজার, দরগাহ গেইট, আম্বরখানা ও বারুতখানার কয়েকটি ব্যাংকের শাখায় এমন ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ রোববার (১৮ এপ্রিল) জিন্দাবাজার এলাকার একটি ব্যাংকে ১ লক্ষ টাকা জমা দিতে আসা ওয়াল্টন শো-রুমের এক কর্মচারীর কাছ থেকে একই পদ্ধতিতে হাতিয়ে নেয় ওই প্রতারকচক্রের এক সদস্য। পরে ওয়াল্টন শো-রুমের ওই কর্মচারী সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আবু ফরহাদ বিষয়টি নিশ্চিত করে সোমবার (১৯ এপ্রিল) বলেন, এমন অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা ওই ব্যাংকের শাখা পরিদর্শন করেছি। সিসি টিভির ফুটেজও খতিয়ে দেখেছি। তবে মাস্কে মুখ ঢেকে থাকায় প্রাথমিক পর্যায়ে দুস্কৃতকারীকে চিহ্নিত করা যায়নি। আমরা সংশ্লিষ্ট সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি এবং আমাদের তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে আমরা তদন্তকাজ চালাচ্ছি। আশা করছি- দ্রুতই অপরাধীকে শনাক্ত করা যাবে।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষেরও সতর্ক থাকতে হবে। প্রতারণার বিষয়টি তুলে ধরে গ্রাহকদেরকে সতর্ক করার জন্য শাখার ভেতরে-বাইরে একাধিক নোটিশ টানানো এবং কর্তৃপক্ষের নজরদারি বাড়ানো প্রয়োজন। সেই সঙ্গে গ্রাহকদেরও সচেতন ও সতর্ক থাকতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap