আজ [bangla_date], [english_date]

লালাবাজার ৭ নং ওয়ার্ডে চমক দেখাতে পারেন আব্দুল হোসেন!

দক্ষিণ সুরমার লালাবাজার ইউনিয়নে নির্বাচন কড়া নাড়ছে ভোটারদের দরজায়। মধ্যখানে মাত্র একটি দিন। আগামী রবিবার (২৮ নভেম্বর) এ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এ নির্বাচন উপলক্ষে ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডে ভোটাদের মধ্যে মেম্বার প্রার্থীদের নিয়ে শেষ মুহুর্তে চলছে তুমুল আলোচনা, বিরাজ করছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। ওয়ার্ডটির মেম্বার হতে ইচ্ছুক প্রার্থীরা আজ শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) চালিয়েছেন শেষ মুহুর্তের প্রচার-প্রচারণা। তবে ভোটাররা বলছেন, ৫ প্রার্থীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচনায় রয়েছেন ৭নং ওয়ার্ডের ঝাজর গ্রামের মরহুম ইছুব আলীর ছেলে ও জাতীয় শ্রমিক লীগ লালাবাজার ইউনিয়ন শাখার আহ্বায়ক আব্দুল হোসেন। ঘুড়ি প্রতীক নিয়ে তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ওয়ার্ডের বিভিন্ন গ্রামে গণসংযোগকালে ভোটারদের সাথে কুশল বিনিময় এবং ৭ নং ওয়ার্ডকে আদর্শ ও উন্নয়নসমৃদ্ধ করে গড়ে তুলতে ২৮ তারিখের নির্বাচনে সকলের সহযোগিতা কামনা করছেন তিনি। গণসংযোগকালে ভোটারদের অভূতপূর্ব সাড়া মিলছে বলে মন্তব্য করছেন আব্দুল হোসেনের কর্মী-সমর্থকরা।

এর আগে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরপরই আব্দুল হোসেন নিজ গ্রামের মুরুব্বিয়ানসহ সকল স্তরের মানুষের পরামর্শ নিয়ে ৭ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেন এবং ৩১ অক্টোবর মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। পরবর্তীতে ৪ নভেম্বর যাচাই-বাছাই শেষে আব্দুল হোসেনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

জানা গেছে, আব্দুল হোসেন দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকার পর এলাকার মানুষের সেবা করার উদ্দেশে দেশে ফিরে আসেন। দেশে আসার পর থেকেই তিনি এলাকার মানুষের সু:খে-দু:খে পাশে রয়েছেন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জ্বীবিত হয়ে শ্রমিক লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে যান। দলের জন্য ত্যাগ ও একনিষ্টতার জন্য একপর্যায়ে জাতীয় শ্রমিক লীগ লালাবাজার ইউনিয়ন শাখার আহ্বায়ক মনোনীত হন আব্দুল হোসেন।

২৮ তারিখের নির্বাচনে তিনি ৭ নং ওয়ার্ডের সকল ভোটারের ভোট সর্বস্তরের মানুষের দোয়া চেয়েছেন তিনি। নির্বাচিত হলে একটি মডেল ও উন্নত ওয়ার্ড গড়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন আব্দুল হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap